ভূমি দস্যু মাজেদ সরদারের হাত থেকে বাঁচতে ভূক্তভোগীদের মানব বন্ধন

0
174

স্টাফ রিপোর্টারঃ খাস জমি জবর দখল ও সম্পত্তি জাল জালিয়াতি করা আব্দুল মাজেদ সরদারের বিরুদ্ধে মানব বন্ধন করেছে ভুক্তভোগীরা। গতকাল বিকালে দরগাপুর বাজারে মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানব বন্ধনে ভূক্তভোগীরা জানান, আশাশুনি উপজেলার দরগাপুর ইউনিয়নের রামনগর গ্রামের মৃত আদেল উদ্দীনের পুত্র মাজেদ সরদার একজন চিহিৃত ভূমিদস্যু। এক সময়ের নৌকার মাঝি সুন্দরবনের চোরাই কাঠ বিক্রেতা। অন্যের জমি জোর পূর্বক দখল করে আসছে। বর্তমানে প্রায় ১৭৫ বিঘার অধিক জমি বিভিন্ন প্রতারনার ফাঁদে ফেলে রাতারাতি বিশাল সম্পতির মালিক বনে গেছেন । স্থানীয় নিরিহ ভূমিহীন মানুষের আর্থিক ভাবে হয়রানী মামলা, হামলা করে আসছে। ১৯৯২ সালে সম্পতি বেনামী মাধ্যমে নিজ নামে জাল দলিল রেকর্ড করে নিয়েছে। জমি গুলো রামনগর, চন্দ্রপুর,তকিপুর অঞ্চলে। অমেন্দ্রনাথ বসু গং এর ১৫ নং খতিয়ানে ২৯.২২ একর,১০ খতিয়ানে ৭৮.৪০ একর,২৩১ খতিয়ানে ২২.২২ একর জমি আত্বসাৎ করে । সাতমোড়া মৌজা ৪নং খতিয়ানে ২.২৫ একর জমি ১৯৭৮ সালে ৩৮৮৭ নং কবলা মূলে জাল দলিল করছে। বিভাবতী এস এ ৩২ খতিয়ানে ৭৬,৮৫,৯১,৮৮ দাগে মোট ১০.০৩ একর জমি ১৯৭৭ সালে ৮০ও ৮২ নং ভূয়া দলিল সৃষ্টি করে আব্দুল মাজেদ। সাতমোড়ক মৌজায় নং ১/১ ও ১নং খতিয়ানে ১১.৩৯ একর মধ্যে হইতে ও ওপদা ভেড়ী বাঁধের পাশে বিপুল অর্থের বিনিময়ে বসতি গড়ে দিয়েছে এবং তাদের নামে জমি লিখে দেওয়ার নাম করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নেয়। এ পর্যন্ত তার বিরুদ্ধে প্রায় ৪০টি মামলা রয়েছে। অবৈধ সম্পদের মালিক আব্দুল মাজেদ সরদারের খুলনা, সাতক্ষীরা ও পাইকগাছার বহুতল বাড়ী রয়েছে। বাকা বাজারে ৬টি দোকান ও দরগাপুর ব্রীজের নীচে ৫টি দোকান, রামনগর বাজারে সম্স্ত দোকান তার দখলে। ইজারা নেওয়া সম্পতি জালিয়াতি করে ভূয়া দলিল দেখিয়ে বিপুল পরিমান টাকা উত্তোলন করে নেয় এই মাজেদ সরদার। এলাকার সচেতন মহল ও ভূক্তভোগীরা জেলা প্রসাশক, পুলিশ সুপার ও দুদকের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে। এবিষয় মাজেদ সরদারেরর কাছে কথা হলে জানান আমি কারও জমি দখল করেনি। সরকারি সম্পত্তি ডিসিআর কেটে খাচ্ছি।