সর্বশেষ সংবাদ

তালায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে মাছের ঘেরে বিষ প্রয়োগ,১২ লক্ষ টাকার ক্ষতি

মোঃ আকবর হোসেন,তালাঃ সাতক্ষীরার তালা উপজেলায় মঙ্গলবার (২৩ অক্টোবর) রাতের পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আজিজুল ইসলাম খাঁনের মৎস্য ঘেরে বিষ প্রয়োগ করেছে প্রতিপক্ষরা। তালা লাউতাড়া বিলে এ ঘটনা ঘটে। এতে কমপক্ষে ১২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে।
চুকনগর গ্রামের শাহাজান খাঁনের ছেলে ঘের মালিক মোঃ আজিজুল ইসলাম জানায়,খুলনা জেলার ডুমুরিয়া উপজেলার তালা উপজেলার তেতুলিয়া ইউনিয়নের ছোট লাউতাড়া গ্রামে ৩৫-৪০ বিঘা জমিতে ৫ বছর যাবৎ সাদা মাছের চাষ করে আসছি। ডিটের শেষ সময় আগামী ৩ শে পৌষ। গত মঙ্গলবার সন্ধ্যায় মাছের ঘেরে খাবার দিয়ে আসি। বুধবার সকালে ঘেরে গিয়ে দেখতে পান, রুই, কাতলা, মৃগেল ও কার্প জাতীয় বিভিন্ন প্রকার মাছ মরে ভেসে উঠেছে।
ঘেরের মালিক আজিজুল ইসলাম খাঁন অভিযোগ করে বলেন,আমাদের প্রতিপক্ষরা রাতের আধারে মাছের ঘেরে বিষ প্রয়োগ করেছে। এতে কমপক্ষে ১২ লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে। ঘেরের মালিক আরো বলেন,পূর্ব শত্রুতার জের ধরে আমাদের প্রতিপক্ষ জয়নাল ঢালী ও তার লোকজন ঘেরে বিষ প্রয়োগ করেছে। আমাদের অর্থনৈতিকভাবে পঙ্গু করে দিয়েছে। এ ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের করার প্রস্তুতি চলছে। তালা থানার ওসি মেহেদী রাসেল ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তালায় মৎস্য ঘের থেকে যুবকের মরদেহ উদ্ধার
মোঃ আকবর হোসেন,তালাঃ সাতক্ষীরার তালায় মৎস্য ঘের থেকে মোঃ ইমরান হোসেন গাজী (২০) নামের এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ।
সে যশোরের কেশবপুর উপজেলার বাঁশবাড়িয়া গ্রামের মুজিবর রহমান গাজীর পুত্র। বুধবার (২৩ অক্টোবর) সকালে উপজেলার নগরঘাটা ইউপি চেয়ারম্যান কামরুজ্জামান লিপুর সমনডাঙ্গা মৎস্য ঘের থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।
পাটকেলঘাটা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) কাজী ওয়াহিদ মুর্শেদ জানান, নগরঘাটার সমনডাঙ্গা বিলে একটি মৎস্য ঘেরে একটি লাশ ভাসতে দেখে স্থানীয়রা পুলিশকে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে মরদেহটি উদ্ধার করে। মরদেহের পরনে ছিল লুঙ্গি ও গেঞ্জি। তবে মরদেহটি পঁচে গেছে এবং অধিকাংশ জায়গা মাছে খেয়ে ফেলেছে। তার গায়ে আঘাতের চিহৃ পাওয়া যায়নি বলে তিনি জানান। পুলিশ মরদেহটি উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য সাতক্ষীরা সদর হাসপাতাল মর্গে প্রেরণ করেছে।
এদিকে ইমরান গাজীর পিতা মুজিবর গাজী বলেন, তার ছেলে ইমরান মৃগি রোগি ছিল। দুইদিন আগে বাড়ি থেকে বের হয়ে আর সে ফিরে আসেনি। বুধবার সকালে তালার নগরঘাটায় একটি লাশের খবর পেয়ে তিনি ছেলেকে সনাক্ত করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *